কথাসাহিত্য ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

মোহাম্মদ আন্ওয়ারুল কবীর | দোস্তি | অণুগল্প সংখ্যা

দোস্তি চাষারার শীতলক্ষ্যা পাড়ের পাকা ঘরটিতে ওরা চারজন। ভাদাইম্যা নুরু, বোতল মিজান, শহীদ মস্তান আর বোমা হামিদ। নদীচরা দখল করে ভাদাইম্যা নুরুই ঘরটি তুলেছে। ওরা চার দোস্ত মাঝেমধ্যেই আড্ডা দেয় এই বাড়িটিতে। রাত প্রায় এগারোটা। তিন তাসের সাথে হুইস্কি পার্টি। স্মার্ট-টিভিতে চলছে বাংলাদেশী পর্ণ। বেশ জমজমাট মচ্ছব। হঠাৎ নুরুর মোবাইল বেজে ওঠে। বিগ বসের নম্বর।

Read More
কথাসাহিত্য ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

দীপংকর গৌতম | তাপদাহ ও একটি এসি | অণুগল্প সংখ্যা

তাপদাহ ও একটি এসিঅফিস থেকে বেরিয়ে বাসের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছি। তাপদাহে জীবন অতিষ্ঠ। সূর্যটা যেন মাথার কাছে চলে আসছে। খিলক্ষেত বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে দেখছি। গলে পড়া সূর্যের আলোর ভিতরে একদল রিক্সাচালক ঘামভেজা শরীরে শরবত বিক্রেতার কাছে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে। হলুদ রঙের শরবত। কাঁচের জারে বেলের দুয়েকটা কণা উঁকি দিচ্ছে, তারমাঝে ভাসছে তোকমাদানা। বরফের আস্তরলেখ ফুলে ফেঁপে

Read More
ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

আমার মায়ের কোনো ফটোগ্রাফ নেই | লাবনী আশরাফি | ছোটগল্প | উৎসব সংখ্যা ২০২৪

ছোটবেলায় একাবার স্টুডিওতে গিয়ে মা পরীর মতো সেজে একটা ছবি তুলেছিল। চোখে বড় ফ্রেমের চশমা। ছিয়ানব্বইয়ের কথা। একটা পা টুলের উপর তুলে দিয়ে বেশ স্টাইলিশ ভঙ্গিতে ছবিটা তুলেছিল। পরনে যে-শাড়িটা ছিল, শুনেছি সেটা বড়মামা দেশের বাইরে থেকে উপহার পাঠিয়েছিলেন। কোন দেশের তা জানা নেই। একটু বড় হয়ে শাড়িটা আমি বহুবার গায়ে জড়িয়েছি। তারপর কোন এক

Read More
ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

সুইমিং পুল | তাইবা তুলবি | ছোটগল্প | উৎসব সংখ্যা ২০২৪

চকচকে সানগ্লাস পরে সেলিম এখন মাছের ব্যাবসা করতে যায়। একেকবার জাল ফেললে তার হাতে উঠে আসে ভেজা ভেজা কাঁচা টাকা। মাছের গন্ধে ভরা একেকটা নোটে কোটি কোটি জীবনের হিসাব নম্বর—ওগুলো ঠিকমত গুণে সেলিম পকেটে ঢুকাল। অবিলম্বে রোদ ঢেকে দিয়ে নিঃশব্দ মেঘেরা ঝাঁকে ঝাঁকে বৃষ্টি নামাল। আবাহাওয়া চমৎকার। তাছাড়া বৃষ্টিতে দাঁড়িয়ে থাকা এখন সেলিম সাহেবের সাথে

Read More
ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

তানিয়ার দিনযাপন | সুপ্তি জামান | ছোটগল্প | উৎসব সংখ্যা ২০২৪

পৃথিবীর তাবৎ চাকুরিজীবীর মতো তানিয়াও চাকরিজীবী জীবনের গ্লানি বহন করে চলেছে, তথাপিও চাকরিটা তার জীবনযাপনের অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে। তানিয়ার প্রায়ই মনে হয় একটা অনর্থক জীবনের ঘানি টেনে চলেছে সে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের মতো! ছাড়াও যায়না, ধরে রাখার বিড়ম্বনাও কম না। বেঁচে থাকার জন্য মানুষকে অর্থের কাছে পরাস্ত হতেই হয় – এ কথা অস্বীকার করার কোন উপায়

Read More
ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

যুদ্ধ | লুইজি পিরানদেল্লো | মোবাশ্বেরা খানম বুশরা অনূদিত | ছোটগল্প | উৎসব সংখ্যা ২০২৪

যে সব যাত্রী রাতের এক্সপ্রেস ট্রেনে রোম ছেড়েছিল তাদেরকে ফ্যাব্রিয়ানোর ছোট্ট স্টেশনটায় সকাল অব্দি অপেক্ষা করতে হয়েছে। সালমোনার সাথে মূল রেললাইনটির যোগাযোগ রাখে যে পুরোনো ধাঁচের লোকাল ট্রেনটি, তাতে চেপে যাত্রা চালিয়ে যেতে এছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না। ভোরবেলা একটা ভীড়ে ঠাসা, ধোঁয়া ভরা দ্বিতীয় শ্রেণির কামরায়, যেটায় পাঁচজন লোক এর মধ্যেই সারাটা রাত

Read More
কথাসাহিত্য ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

এক রাত্রির বয়ান | শিল্পী নাজনীন | ছোটগল্প | উৎসব সংখ্যা ২০২৪

গল্প : শিল্পী নাজনীন | আলোচনা : শায়লা সুলতানা মকবুল! এই মকবুল!চৌকির থেকে খানিক দূরে, দরজার কাছ ঘেঁষে প্রায় দলামোচড়া হয়ে শুয়ে থাকা মকবুলের দিকে তাকিয়ে আতঙ্কিত গলায় মাঝরাত্তিরে চেঁচিয়ে ওঠে হেলি। এইমাত্র দেখা স্বপ্নটা তাকে আচ্ছন্ন করে ফেলে পুরোপুরি। তরাসে বুক ধুকপুক করে তার। ক্ষণিকের জন্য তার মধ্যে তৈরি হয় বিভ্রম। নিজের ঘরটাকে খোলা

Read More
কথাসাহিত্য ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

রিমির গল্প | নাহিদা নাহিদ | ছোটগল্প | উৎসব ২০২৪

গল্প : নাহিদা নাহিদ আলোচনা : সায়মা ইসলাম বর্তমান সময়ের গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোর মাঝখানে এই ঘটনার আবেদন খুব সামান্য। গল্পটা রিমি নামক এক রমণীর। রিমির সঙ্গে একটা সেশন চলছে আমার। সপ্তাহে একদিন বসি। রিমি শুরু করে ওর বাড়িওয়ালা ভাবিকে দিয়ে। মধ্য-তিরিশের ওই রমণীর সঙ্গে রিমির সকাল বিকেলই দেখা হয়। অল্প-স্বল্প সময় নিয়ে সিঁড়ির গোড়ায় দাঁড়ায় তারা।

Read More
কথাসাহিত্য ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

গয়না | সাকি সোহাগ | ছোটগল্প | উৎসব সংখ্যা ২০২৪

গল্প : সাকি সোহাগ | আলোচক : শায়লা সুলতানা আমি নির্দোষ, আমি কোনো অন্যায় করিনি। আপনাদের কোথাও ভুল হচ্ছে। আমি নেশা করি না তা নয়, আমি শুধুমাত্র সিগারেট ছাড়া অন্য কোনো নেশা করি না। এই যে ভাই, হ্যালো, ও ভাই শোনেন, প্লিজ, আমি সত্যিই কোনো নেশা করি না। আমি মধ্যবিত্তের ছেলে হলেও এলাকায় আমার একটা

Read More
কথাসাহিত্য ছোটগল্প বিশেষ সংখ্যা

লোকটা | জাহীদ ইকবাল | ছোটগল্প | উৎসব সংখ্যা ২০২৪

গল্পকার : জাহীদ ইকবাল | আলোচক : সায়মা ইসলাম লোকটা প্রায়ই আসে।কোত্থেকে আসে! কেন আসে! তার হাল-হকিকত, ঠিকানা-সাকিন কিছুই জানি না। তবে সে বেশিক্ষণ থাকে না। দুয়েকটি কথা খরচ করে চলে যায়। বিশেষ করে বাবা যখন বাসায় থাকে না, লোকটা ঠিক তখনই আসে। কেন আসে! জানি না। কখনো খুব একটা কৌতুহল হয়নি। লোকটা মাঝবয়সী। বেঁটেমতো।

Read More
X